ছে‌লেধরা স‌ন্দে‌হে মান‌সিক ভারসাম্যহীন নারী‌কে বেঁধে পিটু‌নি

0


কু‌ড়িগ্রাম প্র‌তি‌নি‌ধি :
‌ছে‌লেধরা স‌ন্দে‌হে মান‌সিক ভারসাম্যহীন এক নারী‌কে বেঁ‌ধে পিটা‌নোর অ‌ভি‌যোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার (২০ আগস্ট ) দুপু‌রে কু‌ড়িগ্রাম সদর উপ‌জেলার ত্রি‌মোহনী বাজা‌রে এ ঘটনা ঘ‌টে। প‌রে ৯৯৯ নম্বর থে‌কে ফোন পে‌য়ে কু‌ড়িগ্রাম সদর থানা পু‌লিশ ঘটনাস্থ‌লে পৌঁ‌ছে ওই নারী‌কে উদ্ধার ক‌রে থানায় নি‌য়ে অা‌সে।


পু‌লিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঙ্গলবার দুপু‌রে ত্রি‌মোহনী বাজার জা‌মে মস‌জি‌দের পিছ‌নে জাহাঙ্গীর অালম না‌মে এক ব্যা‌ক্তির বাসায় যায় মান‌সিক ভারসাম্যহীন ওই নারী। এসময় ওই বাসার ভাড়া‌টিয়া তারা মিয়ার শিশু কন্যার হাত ধ‌রে টান‌ দেন ওই নারী। এ ঘটনায় শিশু‌টি চিৎকার দি‌লে বাসার লোকজন বে‌ড়ি‌য়ে এ‌সে ওই নারী‌কে ধাওয়া ক‌রে। ধাওয়া খেয়ে ওই নারী দৌড় দি‌লে তারা মিয়া তা‌কে অাট‌কে ত্রি‌মোহনী বাজা‌রের এক‌টি দোকা‌নের খুঁটি‌তে বেঁ‌ধে পিটান। ঘটনাস্থ‌লে উপ‌স্থিত কিছু প্রত্যক্ষদর্শী এসময় ৯৯৯ এ ফোন দি‌য়ে ছে‌লেধরা অাটক করা হ‌য়ে‌ছে ম‌র্মে পু‌লি‌শের সহায়তা চাই‌লে কু‌ড়িগ্রাম সদর থানা পু‌লিশ ঘটনাস্থ‌লে পৌঁ‌ছে ওই নারী‌কে উদ্ধার ক‌রে থানায় নি‌য়ে অা‌সে।


কু‌ড়িগ্রাম সদর থানায় গি‌য়ে দেখা গে‌ছে, ডিউ‌টি অ‌ফিসা‌রের রু‌মের মে‌ঝে‌তে কম্বল গায়ে শু‌য়ে বিলাপ কর‌ছেন ওই নারী। তা‌কে পিটা‌নো হ‌য়ে‌ছে ব‌লেও অ‌ভি‌যোগ ক‌র‌ছি‌লেন তি‌নি। তার নাম জিজ্ঞাসা কর‌লে তি‌নি অসংলগ্ন কথাবার্তা বল‌ছেন। ক‌য়েকবার জিজ্ঞাসার পর তি‌নি নি‌জে‌কে রে‌জিয়া পারভীন না‌মে প‌রিচয় দেন। বা‌ড়ির ঠিকানা জিজ্ঞাসা কর‌লে কখনও নাটোরের শিঙড়া অাবার কখনও গো‌বিন্দ নগর ঠিকানা বল‌ছি‌লেন। ওই নারীর অাচর‌ণে তা‌কে মান‌সিক ভারসাম্যহীন ম‌নে হ‌চ্ছে বলে জানান থানায় উপ‌স্থিত পু‌লি‌শ সদস্যরা।
কু‌ড়িগ্রাম সদর থানার ডিউ‌টি অ‌ফিসার ও পু‌লি‌শের সহকারী উপ-প‌রিদর্শক (এএসঅাই) মো.‌সো‌হেল রানা জানান,৯৯৯ এর মাধ্য‌মে অামা‌দের‌কে ফোন করে জানা‌নো হয় যে, ত্রি‌মোহনী এলাকায় ছে‌লেধরা স‌ন্দে‌হে এক নারী‌কে অাটক করা হ‌য়ে‌ছে। প‌রে অামরা ফোর্স পা‌ঠি‌য়ে ওই নারী‌কে উদ্ধার ক‌রে থানায় নি‌য়ে অা‌সি। তার প‌রিচয় সনাক্ত করার চেষ্টা চল‌ছে। প‌রিচয় পে‌লে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হ‌বে।


কু‌ড়িগ্রাম সদর থানার অ‌ফিসার ইন চার্জ (ও‌সি) মো. মাহফুজার রহমান জানান, ‘ওই নারী‌কে দে‌খে মানসিক ভারসাম্যহীন ব‌লে ম‌নে হ‌চ্ছে। তা‌কে ছে‌লে ধরা স‌ন্দে‌হে অাট‌কে রাখা হ‌য়ে‌ছিল। ত‌বে তা‌কে বেঁধে পেটা‌নোর কোনও অ‌ভি‌যোগ পাই‌নি।’অামরা সমাজ‌সেবা কার্যাল‌য়ের কর্মকর্তা‌দের খবর দি‌য়ে‌ছি। তা‌দের সা‌থে পরামর্শ ক‌রে ওই নারীর বিষ‌য়ে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হ‌বে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here