অসহায় মানুষের পাশে নিভৃতচারী মানবিক এক যুবনেতা, প্রচার বিমুখ তরুণ উদ্যোক্তা আরিফুল ইসলাম চৌধুরী

2

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার : পৃথিবী আজ করোনাভাইরাস আক্রমনে দিশেহারা আর এই মহামারী থেকে বাচাঁতে লড়াই করে যাচ্ছে বর্তমান সরকার। অন্যদিকে এই করোনা ভাইরাসে দিশেহারা কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন দেশের অনেক তরুণ, তারমাঝে অন্যতম মানবিক হৃদয়বান যুবনেতা আরিফ চৌধুরী।

কারণ প্রতিদিন রাতের অন্ধকারে অসহায় দরিদ্র পরিবারের খোঁজ নিয়ে নিজের সাধ্যমত খাদ্য সমাগ্রী, টাকা, প্রয়োজনীয় জিনিস বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছেন বিভিন্ন সেচ্ছাসেবক, সাবেক ও বর্তমান ছাত্রনেতাদের মাধ্যমে এই মানবিক যুবনেতা আরিফুল ইসলাম চৌধুরী।

হারবাং ইউনিয়নের ছাত্রলীগের সাবেক সাঃসম্পাদক বোরহান বলেন, আরিফ ভাইয়ের তুলনা হয়না,তিনি ছাত্রলীগের সভাপতি থাকাকালীন সময়ে অনেক আর্থিক অসচ্ছ্বল ছাত্রদের পড়ালেখার খরচ চালিয়েছেন। অনেক অসহায় ছাত্রদের আমরা নিয়ে যেতাম তাদের ভর্তি করিয়ে দিয়ে, ফরম ফিলাপ সহ যাবতীয় খরছ দিতেন। এখন ঢাকায় থাকলেও কোন অসহায় মানুষের অসুবিধার কথা জানালে সাথে সাথে ব্যবস্থা নেন ও সর্বোচ্চ সহযোগিতা করেন আরিফ ভাই।
এই করোনা পরিস্থিতিতেও সবসময়ের মত সকলের খোঁজ খবর নিয়ে অসুবিধার কথা শুনলেই ব্যবস্থা নিচ্ছেন আরিফ ভাই।

আরিফ চৌধুরীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন ” এই করোনা মহামারী পরিস্থিতির শুরু থেকে চকরিয়া উপজেলার ও ঢাকাস্থ চকরিয়া কক্সবাজারের বাসিন্দাদের বিভিন্ন বাড়ি /বাসায় গিয়ে নিজের থেকে আর্থিক সহযোগিতা ও খাদ্য সহায়তা দিয়েছি এবং ভবিষ্যতেও এই কার্যক্রম অব্যাহত রাখব ইনশাআল্লাহ। “

ঢাকাস্থ চকরিয়ার বাসিন্দা এম এ রাশেদ বলেন, পৃথিবীর বহুদেশে ভ্রমনের করার সুযোগ হয়েছে এবং যেহেতু কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত সেহেতু অনেক ছাত্রনেতা যুবনেতার সাথে মিশার সুযোগ হয়েছে আমার সেই হিসাবে বলতে পারি চৌধুরীর মত উদার,পরোপকারী, বড় মনের, মানবিক নেতা কম দেখেছি।
এক কথায় এলাকার গর্ব করার মত একজন মানবিক নেতা। তাঁর সাথে মিশলে বুঝা যায় সে কত বড় মনের মানুষ। সত্যিই তাঁর প্রতিটি কাজ প্রশংসার দাবিদার।

লক্ষ্যারচরের শামীমুল ইসলাম পাপেল বলেন, “আমি একজন যোগ্য নেতার গর্বিত কর্মী আমার নেতা শুধু আর্থিক ভাবে সহযোগিতা নয় যে কোন বিপদে প্রয়োজনে সবার আগে কর্মীদের পাশে দাঁড়ান নিজের ঝুঁকি নিয়ে হলেও।
এককথায় যেমন সাহসী তেমন পরোপকারী মানবিক নেতা।”

পৌরসভার মাস্টার পাড়ার ছাত্রনেতা জাহাঙ্গীর বলেন, ” আমার দেখা বহুগুণে প্রতিভাবান একজন আদর্শ নেতা আরিফ চৌধুরী।”
যখনই দুর্যোগ পরিস্থিতি আসে মানবতার সেবা করতে ছুটে যান বিগত সময়ে চকরিয়ার অনেক এলাকায় বন্যা পরিস্থিতিতে আমাদের সাথে নিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাড়ি বাড়ি খাবার পৌঁছে দিতেন আর এখন করোনার ক্রান্তিলগ্নেও পরিচিত সকলের খোঁজ নিয়ে নিয়ে সহযোগিতা করে চলছেন প্রিয় আদর্শ আরিফ চৌধুরী।

চকরিয়া থানা সেন্টারের বাসিন্দা ছাত্রনেতা এ, কে তারেক বলেন,
“আমার বাড়ির পাশের কিছু অসহায় পরিবারের সমস্যার কথা জানালে আরিফ ভাইকে সাথে সাথেই ত্রাণ সামগ্রী ও আর্থিক সহায়তা পৌঁছে দেন।”

এলাকার একজন বৃদ্ধ বলেন,আরিফ চৌধুরী কাছে যখনই আমরা কোন সহযোগিতা বা প্রয়োজনে যেতাম কোনদিন খালি হাতে ফিরাইনি। একবার এলাকার খাবারের পানির সমস্যার কথা জানালে আমাদের পর্যায়ক্রমে ১০ টি নলকূপের ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন।
উনার বাবার মত বিশাল অন্তরের মানুষ আমাদের ছোট চৌধুরী।

তিনি চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি থাকাকালীন সময়ে সর্ব মহল প্রশংসিত ও জনপ্রিয় ছিলেন।বর্তমানে কেন্দ্রীয় যুবলীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত আছেন।
ও তরুণ উদ্যোক্তা হিসাবে ব্যবসায়বান্ধব জাতি গঠনের কাজ করে যাচ্ছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here