সীমিত পরিসরে হজ আয়োজনের ঘোষণা সৌদি আরবের

9

মোহাম্মদ ফিরোজ, সৌদি আরব প্রতিনিধি ঃ বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ কারণে সৌদি নাগরিক ও সৌদি আরবে বসবাসরত প্রবাসীদের নিয়ে সীমিত পরিসরে হজ আয়োজনের ঘোষণা দিয়েছেন সৌদি আরব।

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে বাহিরের হাজী দের না আনার সিদ্ধান্তে মধ্যে দিয়ে সীমিত পরিসরে অল্পসংখ্যক হজযাত্রীদের অংশগ্রহণে পালিত হবে এইবারে হজ ২০২০। যারা ইতোমধ্যে সৌদিতে অবস্থান করছেন শুধুমাত্র তারাই এবারের হজে অংশগ্রহণ করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন সৌদির রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদ সংস্থা সৌদি প্রেস এজেন্সির।

সোমবার সৌদি হজ বিষয়ক মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, মহামারী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বিস্তার রোধে সীমিত পরিসরে ‌‌‌‘এই বছরও হজের আয়োজন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বর্তমানে সৌদিতে অবস্থানরত বিভিন্ন দেশের নাগরিকরা সীমিত সংখ্যায় এবারের হজে অংশ নেওয়ার সুুযোগ পাবেন।’

সৌদি হজ বিষয়ক মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা বৃদ্ধি, এখনো কোনো ভ্যাকসিন তৈরি না হওয়া এবং বিভিন্ন দেশ থেকে আগত বিশালসংখ্যক মানুষের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠেয় এই সমাবেশে সামাজিক দূরত্ববিধি পালনের সুযোগ না থাকায় এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

“ইসলামের শিক্ষার সাথে সামঞ্জস্য রেখে এই মহামারীজনিত ঝুঁকি থেকে মানুষদের রক্ষার জন্য প্রতিরোধমূলক সকল পদক্ষেপ এবং প্রয়োজনীয় সামাজিক দূরত্বের বজায় রেখে জনস্বাস্থ্যের দৃষ্টিভঙ্গি থেকে নিরাপদ উপায়ে হজ নিশ্চিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলেও বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

“দুটি পবিত্র মসজিদের খাদেমুল হারামাইন শরীফাইন সৌদি সরকার প্রত্যেক বছর লক্ষ লক্ষ ওমরাহ ও তীর্থযাত্রীদের সেবা প্রদান করার জন্য সম্মানিত হয়ে আসছে এবং এইবারের হজও সৌদি সরকারের সিদ্ধান্ত সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার থেকে তীর্থযাত্রীদের নিরাপত্তা বজায় রাখার নির্দেশ দেয়।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, সৌদি আরবের সর্বাধিক অগ্রাধিকার হ’ল মুসলিম হজযাত্রীদের সর্বদা নিরাপদে ও সুরক্ষিতভাবে হজ ও ওমরাহ পালনের জন্য সক্ষম করা। তাই মহামারীটি মহামারীর সূচনা থেকেই উমরাহ হজযাত্রীদের প্রবেশ স্থগিত করে তীর্থযাত্রীদের রক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় সকল সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করে এবং যারা পবিত্র স্থানগুলিতে ইতিমধ্যে উপস্থিত ছিলেন তীর্থযাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করেন ।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, “আমরা সর্বশক্তিমান আল্লাহর কাছে এই দোয়া করছি পৃথিবীর সমস্ত দেশকে এই মহামারী থেকে রক্ষা করুন এবং সমস্ত মানুষকে সুরক্ষিত রাখুন,”

হজের সিদ্ধান্ত সম্পর্কে মন্তব্য করে সৌদি মানবাধিকার কমিশন বলেছে যে সৌদি আরব স্বাস্থ্যের সর্বজনীন অধিকারে বিশ্বাসী। হজ সীমাবদ্ধ না শুধুমাত্র সৌদিকে রক্ষা করে না বরং বহু তীর্থযাত্রী যারা হজ করতে এই পবিত্র ভুমিতে আসে তাদেরকে রক্ষা করাও এই দেশের সরকারের সর্বোচ্চ দায়িত্ব।

সৌদি আরবের দৈনিক আরব নিউজের এক অনলাইন প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, প্রতিবছর বিশ্বের বিভিন্ন দেশের প্রায় ২৫ লাখ মুসল্লি হজে অংশ নেন। কিন্তু এবার মহামারি করোনার কারণে মানুষজন এক দেশ থেকে অন্য দেশে ভ্রমণ করতে পারছেন না। এছাড়া সাম্প্রতিক দিনগুলোতে করোনার সংক্রমণ আশঙ্কাজনক হারে বেড়েই চলেছে।

সম্প্রতি করোনা ভাইরাসের কারণে চলতি মাসের শুরুতে বিশ্বের সর্বাধিক মুসলিম জনগোষ্ঠীর দেশ ইন্দোনেশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে এবারের হজে নিজেদের নাগরিকদের অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানায়। এরপরই মালয়েশিয়া, সেনেগাল এবং সিঙ্গাপুর সরকারের পক্ষ থেকেও একই ঘোষণা আসে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here